Frequently Asked Questions
1
বিএসএন এ সদস্য হলে কী লাভ?

বাংলাদেশ সমবায় নেটওয়ার্ক হচ্ছে এমন একটি ভার্চুয়াল প্লাটফর্ম যেখানে সদস্য হয়ে যে কেউ বাড়ীতে বসেই অল্প অল্প করে সঞ্চয় জমানোর সুযোগ পাবেন এবং প্রয়োজনের সময় বাড়ীতে বসেই সঞ্চিত অর্থ উত্তোলন করতে পারবেন। দরকার হলে ঋণও নিতে পারবেন বাড়ীতে বসেই। আর এ সব কিছুই বাড়ীতে বসেই কম্পিউটার কিংবা মোবাইল ফোনের সাহায্যে সদস্য পরিচালনা করতে পারবেন।

2
সাইনআপ বোনাস কী?

যেকেউ বাংলাদেশ সমবায় নেটওয়ার্ক এ রেজিস্ট্রেশন (সাইনআপ) করে ই-মেইল ভেরিফাই করার সাথে সাথেই তার হিসাবটি সক্রিয় হবে এবং উক্ত হিসাবে সয়ংক্রিয়ভাবে ২০ টাকা জমা হয়ে যাবে; এটাই হচ্ছে সাইআপ বোনাস।

3
রেফারেল বোনাস কী?

প্রত্যেক সদস্য তার অধীনে সর্বোচ্চ ১০ জনকে রেফারেল সদস্য বানাতে পারবেন। প্রত্যেক সক্রিয় রেফারেল সদস্যের জন্য উক্ত সদস্যের একাউন্টে ২০ টাকা করে জমা হবে। অর্থাৎ কোন সদস্যের অধীনে যদি ১০ জন রেফারেল সদস্য থাকে তাহলে তিনি (১০*২০)= ২০০ টাকা বোনাস পাবেন; এটাই হচ্ছে রেফারেল বোনাস।

4
সর্বনিম্ন ও সর্বোচ্চ সঞ্চয় সীমা কত?

সঞ্চয় করার জন্য কোন নির্ধারিত সীমা নেই। যেকোন সদস্য দৈনিক/সাপ্তাহিক/পাক্ষিক/মাসিক ভিত্তিতে নিজের সুবিধামত সঞ্চয় জমা করতে পারবেন। তবে প্রতিবার সঞ্চয় জমার পরিমাণ সর্বনিম্ন১০০ টাকা বা বেশী হতে হবে।

5
সঞ্চিত আমানতের উপর কোন মুনাফা দেয়া হবে কি?

হ্যাঁ, আপনি আপনার সঞ্চয়ের বিপরীতে মুনাফা পাবেন। প্রতিবছর ৩১ ডিসেম্বর তারিখে আপনার ব্যালেন্স ন্যূনতম ২০০০ টাকা বা তার বেশী হলে আপনি সঞ্চিত আমানতের উপর মাসিক ৫% হারে মুনাফা পাবেন। ব্যালেন্স ২০০০ টাকার কম হলে কোন মুনাফা যুক্ত হবে না।

6
বিএসএন কতটা নির্ভরযোগ্য?

বিশ্বাস, আত্মবিশ্বাস, সমৃদ্ধি, শান্তি বিএসএন-এর মূল চাবিকাঠি। সুতরাং সকল সদস্য নিঃসন্দেহে বিএসএন কে বিশ্বাস করতে পারেন। এছাড়াও যেকোন সদস্য চাইলে তার নিকটস্থ “কো-অর্ডিনেটর’ এর সাথে যোগাযোগ করে নির্ভরশীলতার বিষয়ে তার মতামত শেয়ার করতে পারবেন। দেশব্যাপী কো-অর্ডিনেটরগণের তালিকা দেখতে এখানে ক্লিক করুন।

7
ঋণ পেতে হলে কী করতে হবে?

কোন সদস্য ঋণ নিতে চাইলে তার অধীনে কমপক্ষে ৫ জন সক্রিয় রেফারেল সদস্য থাকতে হবে। প্রত্যেক সদস্য সর্বোচ্চ ১০ জন রেফারেল সদস্য বানাতে পারবেন; তবে কো-অর্ডিনেটরদের ক্ষেত্রে এই সীমা সর্বোচ্চ ১০০ জন।

8
আমি কীভাবে বিএসএন-এর সদস্য হতে পারি?

বিএসএন- এর সদস্য হওয়ার জন্য আপনাকে সিস্টেমে নিবন্ধন করতে হবে। আপনি যদি বিএসএন সিস্টেমে নিবন্ধন করতে চান তবে আপনাকে প্রথম পাতার শীর্ষে "সাইনআপ" লিঙ্কটিতে ক্লিক করতে হবে এবং তারপরে আপনার প্রয়োজনীয় তথ্যাদি প্রদান করে সাবমিট করলেই আপনার প্রদত্ত ই-মেইল আইডিতে একটি ভেরিফিকেশন মেইল চলে যাবে। উক্ত মেইলটি খুলে ভেরিফাই লিঙ্কে ক্লিক করলেই আপনার একাউন্টটি সক্রিয় হয়ে যাবে।

9
সাইনআপ করার পর অ্যাকাউন্ট সক্রিয়করণ ইমেইল না পেলে কী করতে হবে?

আপনার ব্যবহৃত ইমেইল এর ইনবক্সে বিএসএন সিস্টেম থেকে কোন ইমেইল না গিয়ে থাকলে স্প্যাম ফোল্ডার পরীক্ষা করে দেখুন। যদি মেইলটি না পান তাহলে আমাদেরকে সাপোর্ট টিকেট এর মাধ্যমে অবহিত করুন। 

10
একটি আইপির জন্য আমার একাধিক অ্যাকাউন্ট থাকতে পারে কি না?

হ্যাঁ, বিএসএন সিস্টেমে মাল্টিপল একাউন্ট গ্রহনযোগ্য। এজন্য আলাদা আলাদা ইমেইল আইডি ব্যবহার করতে হবে; তবে ব্যক্তি তথ্য একই হতে হবে।

11
কিভাবে আমি আমার হিসাবটি পরিচালনা করবো?

সাইনআপ করার পর ইমেইল ভেরিফাই করে লগইন করলেই মেম্বার এরিয়ায় প্রবেশ করতে পারবেন। সেখান থেকে আপনি ডিপোজিট, উত্তোলনসহ যাবতীয় কার্যাদি পরিচালনা করতে পারবেন।

12
কিভাবে রেফারাল সদস্য বানাবো?

ঋণের ক্ষেত্রে রেফারেল সদস্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কাজেই প্রত্যেক সদস্যের উচিৎ তার বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজন কিংবা পরিচিতদের মধ্য থেকে রেফারেল সদস্য বানানো। এজন্য সদস্যকে তার একাউন্টে লগইন করে মেম্বার এরিয়ার বাম দিকে ব্যানার এ ক্লিক করতে হবে এবং প্রদত্ত রেফারেল কোডটি ব্যবহার করে রেফারেল সদস্য বানাতে হবে।

13
আমি কি টাকার পরিবর্তে ডলার পেতে পারি?

হ্যাঁ, কোন সদস্য চাইলে টাকার পরিবর্তে ডলার নিতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে উইথড্রো কমান্ড দেয়ার পূর্বে বিএসএন টিমকে সাপোর্ট টিকেটের মাধ্যমে জানাতে হবে তিনি কোন মাধ্যমে ডলার নিতে চান। টাকার পরিবর্তে ডলার নিতে হলে এক্সচেঞ্জ চার্জ প্রযোজ্য হবে?

14
ঋণ গ্রহণ করলে সার্ভিস চার্জ কি হারে দিতে হবে?

কোন সদস্য ঋণ গ্রহণ করলে ঋণ পরিশোধ না হওয়া পর্যন্ত মোট গৃহীত ঋণের উপর মাসিক ৩% হারে সার্ভিস চার্জ কর্তন করা হবে। উক্ত ঋণ পরিশোধের জন্য সর্বোচ্চ ১ থেকে ১২ সর্বোচ্চ মাস (৩৬৫ দিন) সময় দেয়া হবে।  

15
নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ঋণ পরিশোধ না করলে কী হবে?

ঋণ নিয়ে যথাসময়ে ঋণ পরিশোধ করা ঋণ গ্রহীতার জন্য অবশ্য কর্তব্য। যদি কোন সদস্য ঋণ নিয়ে তা পরিশোধ করতে টালবাহানা করে তাহলে ৩৬৫ দিন অতিক্রম করার পর তার অধীনস্ত রেফারেলগণের হিসাব থেকে উক্ত গৃহীত ঋণের অবশিষ্ট পাওনা স্বযংক্রিয়ভাবে সমন্বয় হয়ে যাবে এবং সেইসাথে উক্ত সদস্যকে অত্র নেটওয়ার্ক থেকে বহিষ্কার করা হবে।

16
সর্বোচ্চ কত টাকা ঋণ পাওয়ার সুযোগ আছে?

যেকোন সদস্য সর্বোচ্চ ৫০০০০/-(পঞ্চাশ হাজার) টাকা পর্যন্ত ঋণ নিতে পারবেন। তবে ঋণাঙ্ক কোনভাবেই তার অধীনস্ত রেফারেল সদস্যগণ কর্তৃক সঞ্চিত সর্বমোট আমানতের ৫০% এর বেশী হবে না।

Featured Ads

বাংলাদেশ সমবায় নেটওয়ার্ক

সঞ্চয় জমাদানের জন্য নিচের যেকোন একটি গেটওয়ে ব্যবহার করা যাবে।